+1 vote
17 views
in খাদ্য ও পানীয় (Food & Drink) by (46 points)
খেতে খেতে সন্তানের পেট ভরে গেছে,তারপর ও যদি মা বাবা খাওয়ার জন্য জোর করে তখন সন্তানের জন্য করণীয় কি?
খাওয়ার সময় পেটের ৩ ভাগের ১ ভাগ বাতাস চলাচলের জন্য খালি রাখা কি ওয়াজিব?

1 Answer

0 votes
by (59,800 points)
edited by

জবাবঃ-
মোটামুটি ভাবে পরিতৃপ্ত হয়ে খাবার গ্রহণ খাবার করা মুবাহ।
তবে এর চেয়ে বেশী পেঠভরে খাবার গ্রহণ করা হারাম।

আল-মাওসুআতুল ফেকহিয়্যাহ তে বর্ণিত রয়েছে- 
"من آداب الأكل : الاعتدال في الطعام ، وعدم ملء البطن ، وأكثر ما يسوغ في ذلك أن يجعل المسلم بطنه أثلاثا : ثلثا للطعام وثلثا للشراب وثلثا للنفس ؛ لحديث : (ما ملأ آدمي وعاء شرا من بطن ، بحسب ابن آدم أكلات يقمن صلبه ، فإن كان لا محالة ، فثلث لطعامه ، وثلث لشرابه ، وثلث لنفسه) . ولاعتدال الجسد وخفته ؛ لأنه يترتب على الشبع ثقل البدن ، وهو يورث الكسل عن العبادة والعمل . ويُعرف الثلث بالاقتصار على ثلث ما كان يشبع به . وقيل : يعرف بالاقتصار على نصف المد ، واستظهر النفراوي الأول لاختلاف الناس . وهذا كله في حق من لا يضعفه قلة الشبع ، وإلا فالأفضل في حقه استعمال ما يحصل له به النشاط للعبادة ، واعتدال البدن
(আল-মাওসুআতুল ফেকহিয়্যাহ-২৫/৩৩২)

ফাতাওয়ায়ে হিন্দিয়ায় বর্ণিত রয়েছে,
وفي الفتاوى الهندية : الأكل على مراتب :
فرض : وهو ما يندفع به الهلاك ، فإن ترك الأكل والشرب حتى هلك فقد عصى .ومأجور عليه ، وهو ما زاد عليه ليتمكن من الصلاة قائما ، ويسهل عليه الصوم .ومباح ، وهو ما زاد على ذلك إلى الشبع لتزداد قوة البدن ولا أجر فيه ولا وزر ويحاسب عليه حسابا يسيرا إن كان من حل .وحرام ، وهو الأكل فوق الشبع إلا إذا قصد به التقوي على صوم الغد ، أو لئلا يستحي الضيف فلا بأس بأكله فوق الشبع .

যদি কোনো বিষয়ে মাতাপিতার কোনো ফায়দা না থাকলে,অন্যদিকে সন্তানের ক্ষতির সম্ভাবনা থাকলে,তাহলে এমন বিষয়ে মাতাপিতার উক্ত বিধিনিষেধের উপর নফল/মুস্তাহাব-কে তারজিহ দেয়াই উত্তম হবে।সুতরাং পেঠভরে খাবার খাওয়ার মাতাপিতার আদেশকে না মেনে তখন মুস্তাহাব বিষয়ের উপর আমলই উত্তম হবে।হ্যা অবশ্যই মাতাপিতার সাথে উত্তম শব্দ ব্যবহার করতে হবে। তাদেরকে হেকমতের সাথে নরম ভাষায় মুস্তাহাবের গুরুত্ব ও মাহাত্ম্য বুঝাতে হবে।বিস্তারিত জানুন-https://www.ifatwa.info/1707


(আল্লাহ-ই ভালো জানেন)

--------------------------------
মুফতী ইমদাদুল হক
ইফতা বিভাগ
Islamic Online Madrasah(IOM)

ﻓَﺎﺳْﺄَﻟُﻮﺍْ ﺃَﻫْﻞَ ﺍﻟﺬِّﻛْﺮِ ﺇِﻥ ﻛُﻨﺘُﻢْ ﻻَ ﺗَﻌْﻠَﻤُﻮﻥَ অতএব জ্ঞানীদেরকে জিজ্ঞেস করো, যদি তোমরা না জানো। সূরা নাহল-৪৩

আই ফতোয়া  ওয়েবসাইট বাংলাদেশের অন্যতম একটি নির্ভরযোগ্য ফতোয়া বিষয়ক সাইট। যেটি IOM এর ইফতা বিভাগ দ্বারা পরিচালিত।  যেকোন প্রশ্ন করার আগে আপনার প্রশ্নটি সার্চ বক্সে লিখে সার্চ করে দেখুন উত্তর পাওয়া যায় কিনা। না পেলে প্রশ্ন করতে পারেন।

Related questions

...