আইফতোয়াতে ওয়াসওয়াসা সংক্রান্ত প্রশ্নের উত্তর দেওয়া হবে না। ওয়াসওয়াসায় আক্রান্ত ব্যক্তির চিকিৎসা ও করণীয় সম্পর্কে জানতে এখানে ক্লিক করুন

0 votes
46 views
in যাকাত ও সদকাহ (Zakat and Charity) by (18 points)
১.আমার শেয়ার এ ২ লাখ টাকা আছে। এটা বারে আবার কমে। এখন আমি এটার উপর কতো টাকা কিভাবে জাকাত ধরবো? এখন বর্তমানে কত আছে জানিনা।
২. আমার ব্যবহার করা স্বর্ণ এক ভরি যা সবসময় ব্যবহার করি। রেখে দেয়া ৮ ভরি। এখন আমি কি ৮ ভরির উপর জাকাত দিবো নাকি পুরু ৯ ভরির উপর?

৩. আমার জাকাত আমার স্বামী আদায় করেন। আপাত দৃষ্টিতে স্বর্ন আমার আমি পড়ি কিন্তু এটা বেচার হক নাই, শাশুড়ী দিয়েছেন শখ করে উনিকষ্ট পাবে সবাই বলে, স্বামীর মত নাই। জাকাত ফরজ হওয়ায় কি হজ্ব ও ফরজ হয়েছে? এখন আমি কি গোনাহগার হবো? এই স্বর্ণ তো আমার না প্রকৃত পক্ষে,  আমি বেচার কেউ না।
৪.  আমার এক ফুপি জাকাতের হিসাবেন ব্যাপারে জানতেন না। বেশ কয়েক বছর উনার জাকাতের পরিমাণ সম্পদ ছিলো কিন্তু দেয়া হয় নি। কত বছর সেটা মনে নাই। এই বছর থেকে দেয়া শুরু করেছেন যাকাত। বিগত বছর গুলো কি দিতে হবে? নাকি আল্লাহর কাছে ক্ষমা চাইলে গোনাহ্ মাফ হবে?
৫. জাযাকের টাকা দিয়ে খাবার কিনে ফোড পেকেট করে গরিব মানুষকে দেয়া যাবে?
৬. একজন গরিব মহিলার স্বামী মারা গেছে,  কোনো সম্পত্তি নেই,  শুধু বাড়ির ভিটা আর এক লক্ষ টাকা জমানো আছে।  সে কি জাকাত খেতে পারবে?

1 Answer

0 votes
by (690,480 points)
জবাবঃ-
بسم الله الرحمن الرحيم

(০১)
https://ifatwa.info/73230/ নং ফতোয়াতে উল্লেখ রয়েছেঃ- 
হাদীস শরীফে এসেছেঃ- 

وَعَنْ سَمُرَةَ بْنِ جُنْدُبٍ: أَنَّ رَسُولَ اللَّهِ صَلَّى اللَّهُ عَلَيْهِ وَسَلَّمَ كَانَ يَأْمُرُنَا أَنْ نُخْرِجَ الصَّدَقَةَ مِنَ الَّذِي نُعِدُّ لِلْبَيْعِ. رَوَاهُ أَبُو دَاوُد

সামুরাহ্ ইবনু জুনদুব (রাঃ)হতে বর্ণিত। তিনি বলেন, রসূলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম আমাদেরকে ব্যবসায়ের জন্য তৈরি করা মালপত্রের যাকাত আদায়ের হুকুম দিতেন।
(আবূ দাঊদ ১৫৬২, সুনানুল কুবরা লিল বায়হাক্বী ৭৫৯৭।

عن الحسن فى رجل اشترى متاعا فحلت فيه الزكاة؟ فقال: يزكيه بقيمته يوم حلت (المصنف لابن أبى شيبة-6\526، رقم-10559)
সারমর্মঃ-
কোনো ব্যাক্তি ব্যবসায়ীক সামানা ক্রয় করেছে,তার উপর কি যাকাত আসবে? হাসান রহ: জবাবে বলেছেন যে সে যাকাত প্রদান করবে যাকাত প্রদানের দিনের মুল্য ধরে। 

عن ابن جريج قال: سمعت أنا أنها قيمة العروض يوم تجرح زكاته (مصنف عبد الرزاق، كتاب الزكاة، باب الزكاة من العروض-4\97، رقم-7105)
সারমর্মঃ-
ব্যবসায়ীক সামানার ক্ষেত্রে যাকাতের টাকা বের করার দিনের মুল্য অনুযায়ী হিসাব করে যাকাত প্রদান করতে হবে।

হস্তগত যেসব ব্যবসায়িক পণ্য রয়েছে। তা এখন বিক্রি করতে গেলে যে বিক্রয়মূল্য আছে, তা হিসেব করে চল্লিশ ভাগের এক ভাগ তথা শতকরা আড়াই টাকা হারে যাকাত আদায় করবে। চাই তা মূল মূল্য বা ক্রয়মূল্যের চেয়ে কম বা বেশি হোক।

যেমন, আপনার কাছে সোফার কাপড় আছে। যার সমূদয় কাপড়ের মূল মূল্য ২ লাখ টাকা। আর ক্রয় করেছে দেড় লাখ টাকায়।
কিন্তু এখন বিক্রি করতে গেলে তার বাজারমূল্য চার লাখ টাকা।
তাহলে আপনার উপর চার লাখ টাকা থেকে চল্লিশ ভাগের এক ভাগ তথা শতকরা আড়াই টাকা যাকাত আদায় করে দিতে হবে।
এ হিসেবে চার লাখ টাকার যাকাত আসবে দশ হাজার টাকা।

আরো জানুনঃ- 

★সু-প্রিয় প্রশ্নকারী দ্বীনি বোন,
শেয়ারগুলোর বর্তমান বাজারমূল্য হিসেব করে যাকাত আদায় করতে হবে।
(জাদীদ ফিক্বহী মাসায়েল-১/২১২)

এক্ষেত্রে এখন বর্তমানে কত আছে,সেটা যেহেতু আপনি জানেননা,সুতরাং আপনি তাদের থেকে আগে জেনে নিবেন।
যে কত আছে।

তারপর সেটির যাকাত দিবেন।

(০২)
পুরো ৯ ভরির যাকাত দিতে হবে।

(০৩)
আপনার শাশুড়ী আপনাকে ঐ স্বর্ন দিয়েছে,আপনি হস্তগতও করেছেন।
সুতরাং এর মালিক তো আপনি।

তাই এর উপর যাকাত ফরজ হবে।
হজ্বে সাথে যাওয়ার মতো মাহরাম পুরুষ থাকলে আপনার উপর হজ্বও ফরজ হবে।

(০৪)
বিগত বছর গুলোরও যাকাত দিতে হবে।

আল্লাহর কাছে ক্ষমা চাইলে তাহা যথেষ্ট হবেনা।

(০৫)
হ্যাঁ, দেয়া যাবেনা।
তবে নেসাব পরিমান সম্পদের মালিক কাউকে যাকাত দেয়া যাবেনা।

(০৬)
ঐ এক লক্ষ টাকার মালিক কে?
ঐ এক লক্ষ টাকার মালিক যদি সেই মহিলা হয়,তাহলে সে যেহেতু নেসাব পরিমান সম্পদের মালিক,তাই তাকে যাকাত দেয়া যাবেনা।

হ্যাঁ যদি যদি সেই এক লক্ষ টাকার মালিক সেই মহিলা না হয়,বরং তার সন্তানেরা মালিক হয়,সেক্ষেত্রে সেই মহিলাকে যাকাত দেয়া যাবে।

সেই মহিলার মালিকানায় ৭৮ হাজার টাকা হতে কম টাকা থাকলে তাকে যাকাত দেয়া যাবে।


(আল্লাহ-ই ভালো জানেন)

------------------------
মুফতী ওলি উল্লাহ
ইফতা বিভাগ
Islamic Online Madrasah(IOM)

আই ফতোয়া  ওয়েবসাইট বাংলাদেশের অন্যতম একটি নির্ভরযোগ্য ফতোয়া বিষয়ক সাইট। যেটি IOM এর ইফতা বিভাগ দ্বারা পরিচালিত।  যেকোন প্রশ্ন করার আগে আপনার প্রশ্নটি সার্চ বক্সে লিখে সার্চ করে দেখুন। উত্তর না পেলে প্রশ্ন করতে পারেন। আপনি প্রতিমাসে সর্বোচ্চ ৪ টি প্রশ্ন করতে পারবেন। এই প্রশ্ন ও উত্তরগুলো আমাদের ফেসবুকেও শেয়ার করা হবে। তাই প্রশ্ন করার সময় সুন্দর ও সাবলীল ভাষা ব্যবহার করুন।

বি.দ্র: প্রশ্ন করা ও ইলম অর্জনের সবচেয়ে ভালো মাধ্যম হলো সরাসরি মুফতি সাহেবের কাছে গিয়ে প্রশ্ন করা যেখানে প্রশ্নকারীর প্রশ্ন বিস্তারিত জানার ও বোঝার সুযোগ থাকে। যাদের এই ধরণের সুযোগ কম তাদের জন্য এই সাইট। প্রশ্নকারীর প্রশ্নের অস্পষ্টতার কারনে ও কিছু বিষয়ে কোরআন ও হাদীসের একাধিক বর্ণনার কারনে অনেক সময় কিছু উত্তরে ভিন্নতা আসতে পারে। তাই কোনো বড় সিদ্ধান্ত এই সাইটের উপর ভিত্তি করে না নিয়ে বরং সরাসরি স্থানীয় মুফতি সাহেবদের সাথে যোগাযোগ করতে হবে।

Related questions

...