আইফতোয়াতে ওয়াসওয়াসা সংক্রান্ত প্রশ্নের উত্তর দেওয়া হবে না। ওয়াসওয়াসায় আক্রান্ত ব্যক্তির চিকিৎসা ও করণীয় সম্পর্কে জানতে এখানে ক্লিক করুন

0 votes
488 views
in পবিত্রতা (Purity) by (7 points)
আমার কানে ইদানিং একটা সমস্যা অনুভূত হচ্ছে। মাঝে মাঝে মনে হয়, কান থেকে কোনো তরল পদার্থ বেরিয়ে আসছে। কানের তুলি বা টিস্যু দিয়ে খোঁচালে কিছুটা হলুদ রঙের তরল দেখতে পাই। তবে, এটা দেখতে পূঁজের মতো নয় বা পূঁজের মতো গন্ধও নাই। কানে যে খোল( হলুদ শুকনা পদার্থ) হয়, উক্ত তরলটাকে এই খোলের তরলরূপ বলে মনে হয়। তবে, আমি সিওর বুঝতে পারছিনা যে, এটা মূলত কী(?)।

তাই, আমি বিশেষজ্ঞ আলিমের কাছে জানতে চাই, এই তরল পদার্থটি কি পাক নাকি নাপাক? যদি নাপাক হয়, তবে গোসলের পরে যখন কানে গোসলের কিছু পানি লেগে থাকে, তখন কানের ওই তরল পদার্থও অল্প পরিমাণে গোসলের পানির সাথে মিশ্রিত হয়ে আছে কী না -এই সন্দেহ হলে কী করবো? এমতাবস্থায় তোয়ালে দিয়ে ওই পানি মুছলে তোয়ালে কী আবার ধুয়ে তারপর  ব্যবহার করতে হবে?

1 Answer

0 votes
by (707,280 points)
edited by

বিসমিল্লাহির রাহমানির রাহিম।

জবাবঃ

কান দিয়ে যদি দুর্গন্ধ যুক্ত পানি নির্গত হয়, তাহলে তা নাপাক। এবং এদ্ধারা অজু নষ্ট হয়ে যাবে। (ফাতাওয়ায়ে মাহমুদিয়্যাহ-৫/৬৬)

তবে যদি কান দিয়ে দুর্গন্ধযুক্ত কোনো পানি বের না হয়, তাহলে তা নাপাক নয়, এবং এদ্ধারা অজুও নষ্ট হবে না। 


 لَا يَنْقُضُ (لَوْ خَرَجَ مِنْ أُذُنِهِ) وَنَحْوِهَا كَعَيْنِهِ وَثَدْيِهِ (قَيْحٌ) وَنَحْوُهُ كَصَدِيدٍ وَمَاءِ سُرَّةٍ وَعَيْنٍ (لَا بِوَجَعٍ) وَإِنْ خَرَجَ (بِهِ) أَيْ بِوَجَعٍ (نَقَضَ) لِأَنَّهُ دَلِيلُ الْجُرْحِ

«حاشية ابن عابدين = رد المحتار ط الحلبي» (1/ 147)


وفي ردالمحتار تحت(قَوْلُهُ: وَصَدِيدٍ) فِي الْمُغْرِبِ: صَدِيدُ الْجُرْحِ مَاؤُهُ الرَّقِيقُ الْمُخْتَلِطُ بِالدَّمِ (قَوْلُهُ: وَعَيْنٍ) أَيْ وَمَاءِ عَيْنٍ: وَهُوَ الدَّمْعُ وَقْتَ الرَّمَدِ. وَفِي بَعْضِ النُّسَخِ وَغَيْرِهِ بَدَلُ وَعَيْنٍ: أَيْ غَيْرِ مَاءِ السُّرَّةِ كَمَاءِ نَفِطَةٍ وَجُرْحٍ (قَوْلُهُ: لَا بِوَجَعٍ) تَقْيِيدٌ لِعَدَمِ النَّقْضِ بِخُرُوجِ ذَلِكَ، وَعَدَمِ النَّقْضِ هُوَ مَا مَشَى عَلَيْهِ الدُّرَرُ وَالْجَوْهَرَةُ وَالزَّيْلَعِيُّ مَعْزِيًّا لِلْحَلْوَانِيِّ.

قَالَ فِي الْبَحْرِ: وَفِيهِ نَظَرٌ، بَلْ الظَّاهِرُ إذَا كَانَ الْخَارِجُ قَيْحًا أَوْ صَدِيدًا لَنَقَضَ، سَوَاءٌ كَانَ مَعَ وَجَعٍ أَوْ بِدُونِهِ لِأَنَّهُمَا لَا يَخْرُجَانِ إلَّا عَنْ عِلَّةٍ، نَعَمْ هَذَا التَّفْصِيلُ حَسَنٌ فِيمَا إذَا كَانَ الْخَارِجُ مَاءً لَيْسَ غَيْرُ. اهـ. وَأَقَرَّهُ فِي الشُّرُنْبُلَالِيَّةِ، وَأَيَّدَهُ بِعِبَارَةِ الْفَتْحِ الْجُرْحُ وَالنَّفِطَةُ وَمَاءُ الثَّدْيِ وَالسُّرَّةِ وَالْأُذُنِ إذَا كَانَ لِعِلَّةٍ سَوَاءٌ عَلَى الْأَصَحِّ اهـ


সুতরাং

যদি ব্যথার মাধ্যমে কান থেকে কিছু বের হয়, এবং দুর্গন্ধ যুক্ত হয়, তাহলে তা নাপাক, তাই

গোসলের পরে যখন কানে গোসলের কিছু পানি লেগে থাকে, তখন কানের ওই তরল পদার্থও অল্প পরিমাণে গোসলের পানির সাথে মিশ্রিত হয়ে থাকলে তোয়াল দ্বারা মুছতে হবে।  তোয়ালে দিয়ে ওই পানি মুছলে তোয়ালে সেই তোয়াতে এক দিরহাম থেকে বেশী পরিমাণে লেগে তাকেও আবার ধুয়ে তারপর  ব্যবহার করতে হবে


(আল্লাহ-ই ভালো জানেন)

--------------------------------
মুফতী ইমদাদুল হক
ইফতা বিভাগ
Islamic Online Madrasah(IOM)

by (707,280 points)
সংযোজন ও সংশোধন করা হয়েছে।

আই ফতোয়া  ওয়েবসাইট বাংলাদেশের অন্যতম একটি নির্ভরযোগ্য ফতোয়া বিষয়ক সাইট। যেটি IOM এর ইফতা বিভাগ দ্বারা পরিচালিত।  যেকোন প্রশ্ন করার আগে আপনার প্রশ্নটি সার্চ বক্সে লিখে সার্চ করে দেখুন। উত্তর না পেলে প্রশ্ন করতে পারেন। আপনি প্রতিমাসে সর্বোচ্চ ৪ টি প্রশ্ন করতে পারবেন। এই প্রশ্ন ও উত্তরগুলো আমাদের ফেসবুকেও শেয়ার করা হবে। তাই প্রশ্ন করার সময় সুন্দর ও সাবলীল ভাষা ব্যবহার করুন।

বি.দ্র: প্রশ্ন করা ও ইলম অর্জনের সবচেয়ে ভালো মাধ্যম হলো সরাসরি মুফতি সাহেবের কাছে গিয়ে প্রশ্ন করা যেখানে প্রশ্নকারীর প্রশ্ন বিস্তারিত জানার ও বোঝার সুযোগ থাকে। যাদের এই ধরণের সুযোগ কম তাদের জন্য এই সাইট। প্রশ্নকারীর প্রশ্নের অস্পষ্টতার কারনে ও কিছু বিষয়ে কোরআন ও হাদীসের একাধিক বর্ণনার কারনে অনেক সময় কিছু উত্তরে ভিন্নতা আসতে পারে। তাই কোনো বড় সিদ্ধান্ত এই সাইটের উপর ভিত্তি করে না নিয়ে বরং সরাসরি স্থানীয় মুফতি সাহেবদের সাথে যোগাযোগ করতে হবে।

Related questions

0 votes
1 answer 438 views
...