আইফতোয়াতে ওয়াসওয়াসা সংক্রান্ত প্রশ্নের উত্তর দেওয়া হবে না। ওয়াসওয়াসায় আক্রান্ত ব্যক্তির চিকিৎসা ও করণীয় সম্পর্কে জানতে এখানে ক্লিক করুন

0 votes
32 views
in বিবিধ মাস’আলা (Miscellaneous Fiqh) by (51 points)
১। মেয়ে বাচ্চা প্রসাব করলে সেই বাচ্চার শরীর যদি শুকনো তেনা দিয়ে মুছে পরিস্কার করে ধৌত না করে তাহলে কি পাক হয়ে যাবে?

২।যদি শুকনো তেনা দিয়ে মুছে পরিস্কার করলে পাক না হয় গোসল করার সময় ছোট গোসলের যায়গা নেওয়া হয় পানি অল্প থাকে  সেই যায়গায় গোসল করালে কি শরীর পাক হবে?

৩।প্রসাব করে পানি দিয়ে  পরিস্কার করার সময় লজ্জাস্থানের আসে পাশে ঘামের কারনে তৈলাক্ত ভাব থাকে সেই তৈলাক্ত ভাব পানি দিয়ে পরিস্কার করলে যায় না এখন সেই তৈলাক্ত ভাব থাকলে কি আমার শরীর পাক থাকবে?

৪।যে কোনো নাপাকি ধোয়ার পর যদি তেল বা ঘামের কারনে তৈলাক্ত ভাব থাকে তাহলে কি শরীর পাক থাকবে।?

৫। নামাজের ভিতরে ঠোঁট শুকিয়ে আঠালো ভাব হয় সেই কারণে সুরা পরতে গেলে ঠোঁট আটকে গিয়ে আয়াতের পাশাপাশি  অন্য রকম শব্দ হয় বেশি পরিমান হয় এখন আয়াত দোহরানো লাগবে কি?

৬।গ্রামে ক্রিকেট টূর্নামেন্ট খেলতে গেলে একটা  এন্ট্রি ফি দিতে হয় এখন কেউ যদি টাকা না দিয়ে তার খেলতে ভালো লাগে সেই কারনে খেলে তাহলে তার কি গুনাহ হবে কি ধরনের গুনাহ হবে কবিরা গুনাহ নাকি সগিরা গুনাহ হবে?

1 Answer

0 votes
by (638,480 points)
জবাবঃ- 
بسم الله الرحمن الرحيم


https://ifatwa.info/14165/ ফতোয়াতে উল্লেখ রয়েছেঃ  
হাদিস শরিফে এসেছে,

عَنْ عَائِشَةَ أُمِّ الْمُؤْمِنِينَ، أَنَّهَا قَالَتْ أُتِيَ رَسُولُ اللَّهِ ﷺ بِصَبِيٍّ، فَبَالَ عَلَى ثَوْبِهِ، فَدَعَا بِمَاءٍ فَأَتْبَعَهُ إِيَّاهُ

উম্মুল মু’মিনীন আয়শা রাযি. থেকে বর্ণিত, তিনি বলেন, রাসূল ﷺ-এর কাছে একটি শিশুকে আনা হল। শিশুটি তাঁর কাপড়ে পেশাব করে দিল। তিনি পানি আনালেন এবং এর ওপর ঢেলে দিলেন। (সহীহ বুখারী ২২২)

অপর হাদিসে এসেছে,

عَنِ ابْنِ عَبَّاسٍ ـ رضى الله عنهما ـ عَنِ النَّبِيِّ ﷺ أَنَّهُ مَرَّ بِقَبْرَيْنِ يُعَذَّبَانِ فَقَالَ ” إِنَّهُمَا لَيُعَذَّبَانِ وَمَا يُعَذَّبَانِ فِي كَبِيرٍ أَمَّا أَحَدُهُمَا فَكَانَ لاَ يَسْتَتِرُ مِنَ الْبَوْلِ

ইবনু আব্বাস রাযি. থেকে বর্ণিত, তিনি বলেন, নবী ﷺ এমন দু’টি কবরের পাশ দিয়ে যাচ্ছিলেন যে কবর দু’টির বাসিন্দাদের আযাব দেওয়া হচ্ছিল। তখন তিনি বললেন, এদের দু’জনকে আযাব দেওয়া হচ্ছে অথচ তাদের এমন গুনাহর জন্য আযাব দেওয়া হচ্ছে না যা থেকে বিরত থাকা দুঃরূহ ছিল। তাদের একজন পেশাবের ব্যাপারে সতর্কতা অবলম্বন করত না আর অপরজন চোগলখুরী করে বেড়াত। (সহীহ বুখারী ১২৭২)

অপর হাদিসে রাসূল ﷺ বলেছেন,

استنزهوا من البول فإن عامة عذاب القبر منه

পেশাব থেকে নিজেকে রক্ষা করো। অর্থাৎ পবিত্র থাকো। কেননা, বেশিরভাগ ক্ষেত্রে কবরের আজাব হবে, পেশাব থেকে ভালোভাবে পবিত্র না হওয়ার কারণে। (ইবন মাজাহ ৩৪৮ হাকিম ১/১৮৩ মুসনাদ আহমাদ ২/৩২৬)

প্রিয় প্রশ্নকারী দ্বীনি ভাই/বোন, 
(০১)
এক্ষেত্রে পাক হবেনা।

(০২)
এক্ষেত্রে গোসলের পর তার শরীর হতে পানি যদি গড়িয়ে চলে যায়,সেখানে যদি পানি জমে না থাকে,তাহলে সে পাক হবে।

সে যদি ঐ নাপাক পানির মধ্যেই থাকে,যেমন একটি গামলার মধ্যে তাকে রেখে গোসল করানো হচ্ছে,যেক্ষেত্রে সব পানি সেখানেই জমে থাকে,তাহলে এমতাবস্থায় সে পাক হবেনা।

(০৩)
এ তৈলাক্ত ভাব নাপাক নয়।
সুতরাং সেই তৈলাক্ত ভাব থাকলেও আপনার শরীর পাক থাকবে।

(০৪)
এক্ষেত্রে উক্ত স্থান ডলে মলে ধোয়ার পরেও তৈলাক্ত ভাব থাকলে শরীর পাক থাকবে।

(০৫)
এক্ষেত্রে অন্য হরফ উচ্চারণ হয়ে গেলে সেই আয়াতটি অথবা তার একটি আগ থেকে পুনরায় শুদ্ধ ভাবে পাঠ করতে হবে।

(০৬)
ঐ খেলায় যেহেতু জুয়া রয়েছে।
সুতরাং টাকা না দিলেও সেই খেলায় অংশগ্রহণ করার দরুন জুয়ায় সহযোগিতা করা হয়।

তাই এক্ষেত্রে কবিরা গুনাহ হবে।


(আল্লাহ-ই ভালো জানেন)

------------------------
মুফতী ওলি উল্লাহ
ইফতা বিভাগ
Islamic Online Madrasah(IOM)

আই ফতোয়া  ওয়েবসাইট বাংলাদেশের অন্যতম একটি নির্ভরযোগ্য ফতোয়া বিষয়ক সাইট। যেটি IOM এর ইফতা বিভাগ দ্বারা পরিচালিত।  যেকোন প্রশ্ন করার আগে আপনার প্রশ্নটি সার্চ বক্সে লিখে সার্চ করে দেখুন। উত্তর না পেলে প্রশ্ন করতে পারেন। আপনি প্রতিমাসে সর্বোচ্চ ৪ টি প্রশ্ন করতে পারবেন। এই প্রশ্ন ও উত্তরগুলো আমাদের ফেসবুকেও শেয়ার করা হবে। তাই প্রশ্ন করার সময় সুন্দর ও সাবলীল ভাষা ব্যবহার করুন।

বি.দ্র: প্রশ্ন করা ও ইলম অর্জনের সবচেয়ে ভালো মাধ্যম হলো সরাসরি মুফতি সাহেবের কাছে গিয়ে প্রশ্ন করা যেখানে প্রশ্নকারীর প্রশ্ন বিস্তারিত জানার ও বোঝার সুযোগ থাকে। যাদের এই ধরণের সুযোগ কম তাদের জন্য এই সাইট। প্রশ্নকারীর প্রশ্নের অস্পষ্টতার কারনে ও কিছু বিষয়ে কোরআন ও হাদীসের একাধিক বর্ণনার কারনে অনেক সময় কিছু উত্তরে ভিন্নতা আসতে পারে। তাই কোনো বড় সিদ্ধান্ত এই সাইটের উপর ভিত্তি করে না নিয়ে বরং সরাসরি স্থানীয় মুফতি সাহেবদের সাথে যোগাযোগ করতে হবে।

Related questions

...