আইফতোয়াতে ওয়াসওয়াসা সংক্রান্ত প্রশ্নের উত্তর দেওয়া হবে না। ওয়াসওয়াসায় আক্রান্ত ব্যক্তির চিকিৎসা ও করণীয় সম্পর্কে জানতে এখানে ক্লিক করুন

0 votes
219 views
in দাফন ও জানাজা (Burial & Janazah) by (3 points)
reshown by
আসসালামু আলাইকুম,
আমার বাবা একজন মুক্তিযোদ্ধা। মুক্তিযোদ্ধারা মারা গেলে থানা থেকে এবং উপজেলা থেকে সরকারী মানুষজন এসে দাফনের আগে কিছু রাষ্ট্রীয় কাজ করে। যেমন, খাটের উপর দেশের পতাকা দিবে, ভিউগল (বাশি) বাজাবে।যেহেতু রাষ্ট্র যানে যে আমার বাবা মুক্তিযোদ্ধা এবং ওনার মুক্তিযোদ্ধা সনদও আছে তাই আমার বাবার বেলাও এর ব্যতিক্রম হবে না। আমার প্রশ্ন হচ্ছে---

১. এটা কি ইসলাম সমর্থন করে?

২. যদি এটা নাজায়েজ হয় তাহলে আমি কিভাবে এটা থেকে আমার বাবা কে রক্ষা করতে পারি যদি আল্লাহ আমাকে বাচিয়ে রাখেন।

৩. যদি নাজায়েজ হয় এবং সরকার আমাকে বাধ্য করে তাহলে  কি সেটার গুনাহের ভাগিদার আমার পরিবার বা আমার বাবা হবেন কিনা?

1 Answer

0 votes
by (683,600 points)
ওয়া আলাইকুমুস-সালাম ওয়া রাহমাতুল্লাহি ওয়া বারাকাতুহু। 
বিসমিল্লাহির রাহমানির রাহিম।
জবাবঃ-
ব্যক্তিগতভাবে দাফন হোক বা রাস্ট্রীয় মর্যাদায় দাফন হোক, ইসলামী অনুশাসন মেনেই দাফন করতে হবে। খাটের উপর রাষ্ট্রীয় পতাকা নাজায়েয হবে না। তবে বাশী বাজানো বা গানবাজনা করে দাফন করার কোনো নিয়ম বা পদ্ধতি শরীয়তে নাই। বরং এটা অমুসলিমদের পদ্ধতি।
হাদীস শরীফে এসেছে.....
ﻋَﻦْ ﺍﺑْﻦِ ﻋُﻤَﺮَ ﻗَﺎﻝَ : ﻗَﺎﻝَ ﺭَﺳُﻮﻝُ ﺍﻟﻠَّﻪِ ﺻَﻠَّﻰ ﺍﻟﻠَّﻪُ ﻋَﻠَﻴْﻪِ ﻭَﺳَﻠَّﻢَ ﻣَﻦْ ﺗَﺸَﺒَّﻪَ ﺑِﻘَﻮْﻡٍ ﻓَﻬُﻮَ ﻣِﻨْﻬُﻢْ ) ﺭﻭﺍﻩ ﺃﺑﻮ ﺩﺍﻭﺩ ( ﺍﻟﻠﺒﺎﺱ / 3512 ) ﻗﺎﻝ ﺍﻷﻟﺒﺎﻧﻲ ﻓﻲ ﺻﺤﻴﺢ ﺃﺑﻲ ﺩﺍﻭﺩ : ﺣﺴﻦ ﺻﺤﻴﺢ . ﺑﺮﻗﻢ ( 3401
হযরত ইবনে উমর রাঃ থেকে বর্ণিত,রাসুলুল্লাহ বলেন যে ব্যক্তি অন্য গোত্রে (অমুসলিম)-র অনুসরণ করবে সে তাদের-ই অন্তর্ভুক্ত হবে।(আবু-দাউদ-৩৫১২)
(ইমদাদুল ফাতাওয়া,৪/২৬৬)

সুতরাং 
সরকারকে এ বিষয়ে আমাদেরকে বুঝাতে হবে। বুঝিয়ে শুনিয়ে আইনকে পরিবর্তন করতে হবে।

সু-প্রিয় প্রশ্নকারী দ্বীনী ভাই/বোন!
আপনার বাবার উপর ওয়াজিব যে, তিনি উকিলের মাধ্যমে বা এমনিতেই, এইভাবে বাশি না বাজানোর ওসিয়ত করে যাবেন।আপনারা সরকার মহোদয়কে সেই ওসিয়ত নামা দেখাবেন। ওসিয়ত নামা দেখানোর পরও যদি সরকার বাশি বাজিয়ে দাফনের ব্যবস্থা করে, তাহলে এক্ষেত্রে আপনার বা আপনার বাবার কারো কোনো গোনাহ হবে না।


(আল্লাহ-ই ভালো জানেন)

--------------------------------
মুফতী ইমদাদুল হক
ইফতা বিভাগ
Islamic Online Madrasah(IOM)

আই ফতোয়া  ওয়েবসাইট বাংলাদেশের অন্যতম একটি নির্ভরযোগ্য ফতোয়া বিষয়ক সাইট। যেটি IOM এর ইফতা বিভাগ দ্বারা পরিচালিত।  যেকোন প্রশ্ন করার আগে আপনার প্রশ্নটি সার্চ বক্সে লিখে সার্চ করে দেখুন। উত্তর না পেলে প্রশ্ন করতে পারেন। আপনি প্রতিমাসে সর্বোচ্চ ৪ টি প্রশ্ন করতে পারবেন। এই প্রশ্ন ও উত্তরগুলো আমাদের ফেসবুকেও শেয়ার করা হবে। তাই প্রশ্ন করার সময় সুন্দর ও সাবলীল ভাষা ব্যবহার করুন।

বি.দ্র: প্রশ্ন করা ও ইলম অর্জনের সবচেয়ে ভালো মাধ্যম হলো সরাসরি মুফতি সাহেবের কাছে গিয়ে প্রশ্ন করা যেখানে প্রশ্নকারীর প্রশ্ন বিস্তারিত জানার ও বোঝার সুযোগ থাকে। যাদের এই ধরণের সুযোগ কম তাদের জন্য এই সাইট। প্রশ্নকারীর প্রশ্নের অস্পষ্টতার কারনে ও কিছু বিষয়ে কোরআন ও হাদীসের একাধিক বর্ণনার কারনে অনেক সময় কিছু উত্তরে ভিন্নতা আসতে পারে। তাই কোনো বড় সিদ্ধান্ত এই সাইটের উপর ভিত্তি করে না নিয়ে বরং সরাসরি স্থানীয় মুফতি সাহেবদের সাথে যোগাযোগ করতে হবে।

Related questions

...